Blog Details

বরগুনায় ভাড়াটিয়া কর্তৃক অধ্যাপকের বাসভবন দখলের পায়তারা ও হত্যার হুমকী

বরগুনায় ভাড়াটিয়া কর্তৃক অধ্যাপকের বাসভবন দখলের পায়তারা ও হত্যার হুমকী

লোকবেতার ডেস্ক :

বরগুনায় জেলা শহরের কলেজ রোডের একটি বেসরকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ ভাড়াটিয়া কর্তৃক সরকারী বিএম কলেজের একজন অধ্যাপকের বাসভবন ভাংচুর, দখলের পায়তারা  ও হত্যার হুমকির অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। এব্যাপারে ভুক্তভোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন রবিবার সকালে বরগুনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন লিখিত বক্তব্যে জানান, বরগুনায় জেলা শহরের কলেজ রোডের ক্ষণিকালয় নামের তার তিনতলা বাসভবনের ১ম, ৩য় ও ২য় তলার আংশিক বরগুনা প্রি-ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজের তৎকালিন কর্তৃপক্ষের নিকট ২০১২ হতে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ৫ বছরের জন্য চুক্তিপত্রের মাধ্যমে জামানত ২ লাখ টাকা জামানত গ্রহণপূর্বক ভাড়া প্রদান করা হয়। ভাড়ার মেয়াদ শেষ হলে স্কুল কর্তৃপক্ষ আরো ৫ বছরের জন্য মাসিক ৬০ হাজার টাকা ভাড়াচুক্তিতে ৫ লাখ টাকা জামানত গ্রহণ করে পুনরায় ভাড়া প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে বরগুনা প্রি-ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালকদের মধ্যে অভ্যন্তরীণ বিরোধের কারণে তৎকালিন সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক স্কুল ছেড়ে যাওয়ায় বাড়িভাড়া চুক্তিপত্রটি নবায়ন করা হয়নি। ইতোমধ্যে ২০১৮ সালের মে মাস হতে ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত ৩২ মাসের ভাড়াবাবদ ১৯ লাখ ২০ হাজার টাকা বকেয়া পরলে বাড়ি ছাড়া ও বকেয়া পরিশোধের জন্য একাধিকবার নোটিশ প্রদান করলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

অধ্যাপক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন লিখিত বক্তব্যে আরো জানান, বর্তমানে বরগুনা মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মেহেদী হাসান তাকে জানিয়েছেন, বরগুনা প্রি-ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজটি অন্য একটি প্রতিষ্ঠানের সাথে একত্রিত করে বরগুনা মডেল স্কুল এন্ড কলেজ করা হয়েছে। পূর্বের ৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা বকেয়া পরিশোধ করলে নিয়মিত ভাড়া পরিশোধের অঙ্গীকারে অধ্যক্ষ মোঃ মেহেদী হাসানের অনুরোধে ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬৫ হাজার মাসিক ভাড়া প্রদান করা হয়। অন্যান্য শিক্ষকরাও ভাড়া প্রদান সংক্রান্ত অঙ্গীকারনামায় স্বাক্ষর করেন।
অঙ্গীরামান অনুযায়ী বাড়ি ভাড়া চাইতে গেলে অধ্যক্ষ মেহেদী হাসান কোন ভাড়া প্রদান করেননি উল্টো হুমকি ধামকি দিয়ে নানাভাবে হেনস্তা করছেন। বরগুনা মডেল স্কুল এন্ড কলেজ কর্তৃপক্ষের নিকট ১৩ লাখ ১০ হাজার পাওনা রয়েছে। টাকা চাইতে গেলেই তারা মারমুখি হয়ে উঠে। বাড়ি দখল করার পায়তারাসহ হত্যার হুমকি দিচ্ছে।

তিনি আরো জানান, বাড়ির ৩য় তলার একটি অংশে শিক্ষক ও ছাত্ররা কোনপ্রকার আলোচনা ছাড়াই প্লাটের আকৃতি পরিবর্তন করে বসবাস করতেছে। রাতের বেলা আমার পরিবারের সদস্যদের ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ নানাভাবে উৎপাত করছে।  বকেয়া ভাড়া ও বাসা ছেড়ে দেয়ার জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষকে লিগ্যাল নোটিশ করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়। অধ্যক্ষ মেহেদী হাসানের নেতৃত্বে ১৮ ডিসেম্বর ছাত্ররা আমার বাড়ি ভাঙগচুর করে। বর্তমানে আমাদের পরিবার পরিজন নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

এব্যাপারে বরগুনা মডেল স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি আলহাজ্ব মো. হুমায়ুন কবির জানান, বাড়ির মালিক চুক্তি করেছেন স্কুলের শিক্ষকদের সাথে, তাছাড়া কোন ভাড়াও বাকী নেই। করোনাকালিন ভাড়াটা মালিকের কনসিডার করা উচিত ছিল।

বরগুনা মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মেহেদী হাসান বলেন, করোনার কারণে শিক্ষার্থী না থাকায় বাড়িভাড়া প্রদান সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে পরিশোধের উদ্যোগ নেয়া হলেও অধ্যাপক স্যার কোন সময় না দিয়ে একেরপর এক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this:

developed by:Md Nasir