Blog Details

বরগুনার তালতলীতে ২২টি সুপারি গাছ কর্তণ

বরগুনার তালতলীতে ২২টি সুপারি গাছ কর্তণ

হাইরাজ মাঝি, তালতলী : বরগুনার তালতলী উপজেলার বড়বগী ইউনিয়নের করমজাপারা গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একটি সুপারি গাছের বাগান থেকে ২২টি গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার জাহিদ মাঝি, জুলহাস সিকদার, আলাল মুসল্লী ও দুলাল হাওলাদারের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (২২ জুলাই) বিকেলে বাগান মালিক আমির মীর সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিযোগ করেন। এর আগে, গত বুধবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

বাগান মালিক আমির মীর অভিযোগ করে বলেন, অসুস্থতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে করমজা পাড়া গ্রামে আমার পরিবারসহ থাকি না, তালতলী সদরের নিজ বাড়িতে বসবাস করছি। গ্রামের বাড়ির এই বাগান থেকে প্রতি বছর দেড় থেকে দুই লক্ষ টাকার  সুপরি ও নারিকেল বিক্রি করি। গত দুইদিন আগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানতে পারি আমার বাগান থেকে ২২ টি সুপারি গাছ কেটে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। পরে জানতে পারি একই এলাকায় জাকির মাঝীর ছেলে জাহিদ মাঝী, রিপন শিকদারের ছেলে জুলহাস সিকদার, ইসমাইল মুসল্লির ছেলে আলাল মুসল্লী ও গয়জুদ্দিন হাওলাদার এর ছেলে দুলালসহ তাদের লোকজনেরা গাছগুলো কেটে নিয়ে গেছে। প্রতিটা গাছে সুপারি ফল ধরেছে কিছুদিন পরেই বিক্রির উপযোগী হয়ে যেত, এতে আমার প্রায় এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে।

তবে চুরির বিষয় অস্বীকার করে জাহিদ মাঝি বলেন, গত বুধবার আমির মীরার ভাই জব্বার মীরের কাছ থেকে ১০০ টাকা মূল্য  কয়েকটি গাছ কিনেছি। জব্বার মীর মানসিক ভারসাম্যহীন তার কাছ থেকে গাছ কিভাবে কিনলেন? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যের মাধ্যমে প্রতিটি গাছ ৪০০ টাকা মূল্যে মীমাংসা করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছি। অন্য তিনজনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা হলে  পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে তালতলী থানার অফিসার ইনচার্জ সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, থানায় কেউ অভিযোগ করেনি অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

Leave a Reply

%d bloggers like this:

developed by:Md Nasir